পাসওয়ার্ড ভুলে গেছেন?

পরিবেশ এবং গণপূর্ত অধিদপ্তর

পরিবেশগত বিষয়াদি যেমন জলবায়ু পরিবর্তন, বন উজাড়, পানি ঘাটতি, ক্ষয়িষ্ণু জীববৈচিত্র এবং ভূমিক্ষয় আজ বর্তমান বিশ্বের বাস্তবতা এবং বাংলাদেশ এর ব্যতিক্রম নয়। এটি ভবিষ্যত প্রজন্মের স্বার্থরক্ষার জন্য পরম যত্নবান হওয়ার আহ্বান জানায়। এমডিজি৭ -এর মাধ্যমে জাতিসংঘ উচ্চারিত আমাদের সার্বজনীন দায়িত্ব হলো পরিবেশগত স্থিতিশীলতা নিশ্চিত করা, প্রকৃতি ও পৃথিবীর সঙ্গে সমন্বয়, যাতে করে মানবজাতির বর্তমান এবং ভবিষ্যত প্রজন্মের অর্থনৈতিক, সামাজিক ও পরিবেশগত চাহিদার মাঝে সাম্য বজায় থাকে। এর ধারাবাহিকতায় এবং বাংলাদেশ সরকারের নিয়ম, নীতি ও আইন কানুন মেনে গণপূর্ত অধিদপ্তর তার উন্নয়ন প্রকল্প পরিকল্পনা ও বাস্তবায়নে প্রাকৃতিক পরিবেশ সংরক্ষণ ও পুনরুদ্ধারে বিশেষ যত্ন নিয়ে থাকে।

উন্নয়ন প্রক্রিয়া চলাকালে সবসময়ই প্রাকৃতিক পরিবেশ বিপন্ন হয়। যদি সঠিকভাবে পরিকল্পনা ও নির্মান করা যায় তাহলে নির্মিত পরিবেশ প্রাকৃতিক পরিবেশের সাথে অঙ্গাঙ্গিভাবে মিশে যেতে পারে যা একে অপরের সৌন্দর্য বাড়ায়। তাই পিডব্লিউডি তার উন্নয়ন প্রকল্প পরিকল্পনা ও বাস্তবায়নে জলাশয় হারানো, পরিবেশগতভাবে গুরুত্বপূর্ণ এলাকার ক্ষতি, প্রাকৃতিক বনভূমির ক্ষতি এবং কৃষিজমি হারানোর মতো বিষয়গুলো সাবধানতার সাথে বিবেচনা করে থাকে। সকল প্রকল্প এলাকায় বৃক্ষরোপন এবং হ্রদ ও পুকুর নির্মান ও সংরক্ষণে বিশেষ গুরুত্ব দেয়া হয়। ভবন ও স্মৃতিস্তম্ভ সংরক্ষণ, স্থাপত্যমান সম্পন্ন কাঠামো এবং বিশেষ প্রাকৃতিক বৈশিষ্ঠ্য রক্ষার বিষয়গুলো অগ্রাধিকার পেয়ে থাকে। এছাড়াও বর্জ্য নিস্কাশন ব্যবস্থাপনা যুক্ত করা এবং ভবনবাসীদের জন্য পানির সরবরাহ নিশ্চিত করার মত বিষয়গুলো যত্ন সহকারে পরিকল্পনা ও বাস্তবায়ন করা হয়। পরিবেশ বিষয়ে সরকারের স্বার্থ রক্ষায় গণপূর্ত অধিদপ্তর নিম্নলিখিত পদক্ষেপ গুলো নিয়ে থাকে:

  • গৃহায়ন ও নগর পরিকল্পনা কার্যক্রমে পরিবেশগত বিবেচনাগুলো অন্তর্ভুক্ত করা
  • ধীরে ধীরে সকল শহুরে ও গ্রামীন আবাসিক এলাকায় পরিবেশগতভাবে পোক্ত সুযোগ সুবিধার সম্প্রসারণ
  • গৃহায়ন ও নগর উন্নয়ন পরিকল্পনা যেগুলো স্থানীয় ও প্রাকৃতিক পরিবেশের উপর বিরূপ প্রভাব ফেলতে পারে সেগুলোর দেখাশোনা ও নিয়ন্ত্রণ করা
  • পরিবেশগত ভারসাম্য বজায় রাখতে এবং শহুরে এলাকার সৌন্দর্যবর্ধনে জলাশয়ের উপর গুরুত্বারোপ করা
  • পরিবেশগত বিষয়ে সচেতনতা বৃদ্ধি এবং জলবায়ু পরিবর্তন অভিযোজনে মানবসম্পদের সক্ষমতা বৃদ্ধি করতে প্রশিক্ষণ কোর্স, সেমিনার ও কর্মশালার আয়োজন করা
জলবায়ু পরিবর্তন প্রতিরোধ এবং গ্রীন বিল্ডিং ডিজাইন:

বিভিন্ন সুত্রে প্রাপ্ত গবেষণায় দেখা যায় যে জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাবে বাংলাদেশ বিশ্বের সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্থ দেশগুলোর একটি হতে যাচ্ছে। আশংকা করা হচ্ছে যে বন্যা এবং ভয়ঙ্কর ঘুর্নিঝরের পুনরাবৃত্তি এবং ব্যপকতা বাড়তে পারে। বিশ্বের মোট শক্তির একটি উল্লেখযোগ্য অংশ ভবনগুলোতে ব্যবহৃত হয়। তবে এই ক্ষেত্রটিতে উল্লেখযোগ্য পরিমানে এবং সাশ্রয়ী ভাবে গ্রীন হাউস গ্যাস নির্গমন কমানোর অপার সম্ভাবনা আছে। এটা সময়ের দাবি যে পরিবেশের উপর প্রভাব বিবেচনায় ভবনের নকশা ও পরিকল্পনা করা উচিত এবং টেকসই নির্মান উপকরণ ও রীতিনীতি খুঁজে বের করার প্রচেষ্টা অব্যহত রাখতে হবে। বিভিন্ন উদ্যোগ যেমন সঠিক নির্মান সামগ্রী বাছাই, বিদ্যুত সাশ্রয়ী যন্ত্রপাতি ব্যবহার, পানি সাশ্রয়ী কল স্থাপন, বর্জ্য জলের পুনর্ব্যবহার, বৃষ্টির পানি ও সৌর শক্তির ব্যবহার এ ব্যপারে গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা পালন করে। বাংলাদেশের সরকারী ভবনগুলোতে ধীরে ধীরে এসকল বৈশিষ্ঠ্য় যুক্ত করতে গণপূর্ত অধিদপ্তর আগ্রহী। সরকারী নীতি মেনে ভবনগুলোতে বিভিন্ন গ্রীন ফিচার সংযুক্ত করা ইতিমধ্যে শুরু হয়েছে। বিভিন্ন সরকারী ভবনে সৌর প্যানেল স্থাপন এবং বৃষ্টির পানি সংগ্রহ করার ব্যবস্থা এর উদাহরণ। বৃষ্টির পানি সংগ্রহের সিস্টেম স্থাপন এবং পরিচালনা করার জন্য একটি ম্যানুয়াল ইতিমধ্যে তৈরী করা হয়েছে।


Rain Water Harvesting System at PWD HQ
উদ্যান এবং হ্রদ:

গুরুত্বপূর্ণ উদ্যান এবং হ্রদের রক্ষনাবেক্ষণ পিডব্লিউডির দায়িত্ব। ঢাকা শহরের প্রাণকেন্দ্রে রমনা পার্কের প্রাকৃতিক সৌন্দর্য রক্ষায় পিডব্লিউডির একটি অফিস সার্বক্ষনিক কাজ করে যাচ্ছে। সোহরাওয়ার্দী উদ্যান হলো ঢাকার আরেকটি ঐতিহাসিক উদ্যান যা পিডব্লিউডির দ্বারা পরিচালিত হচ্ছে।


Lake at Ramna Park

Ramna Park
পরিবেশ ও স্বাস্থ্য খাত এবং পিডব্লিউডির ভুমিকা:

গণপূর্ত অধিদপ্তর দেশের সকল বিশেষায়িত হাসপাতাল সহ বড় বড় স্বাস্থ্যসেবার স্থাপনাগুলির নির্মান ও রক্ষনাবেক্ষনের দায়িত্ব পালন করে। হাসপাতালগুলো হলো বড় সরকারী ভবন যেগুলো পার্শ্ববর্তী এলাকার পরিবেশ এবং অর্থনীতিতে উল্লেখযোগ্য প্রভাব বিস্তার করে। এগুলো শক্তি এবং পানি প্রচুর ব্যবহার করে এবং বিশাল পরিমান বর্জ্য উত্পাদন করে। সরকারী হাসপাতালগুলিতে সঠিক বর্জ্য ব্যবস্থাপনার মৌলিক অবকাঠামো তৈরিতে পিডব্লিউডি সক্রিয়ভাবে কাজ করছে।

বিবেচনাধীন ক্ষেত্র:

পরিবেশ অবক্ষয় প্রতিরোধে নিম্নলিখিত বিষয়গুলো পিডব্লিউডির সক্রিয় বিবেচনাধীন রয়েছে

  • কোন নকশার পরিকল্পনা পর্যায়ে অনুসরণের জন্য একটি পরিবেশগত গাইড লাইন প্রনয়ন
  • ঠিকাদারদের জন্য একটি পরিবেশগত গাইড লাইন প্রনয়ন যা টেন্ডার ডকুমেন্টের অংশ হিসেবে থাকবে এবং অবশেষে নির্মান কাজের সময় অনুসরণের জন্য চুক্তির অংশ হিসেবে বিবেচিত হবে
  • স্বাস্থ্য ও বাসস্থানের মতো গুরুত্বপূর্ণ খাতের কার্যক্রম ও রক্ষনাবেক্ষনের সময় পরিপালনের জন্য পরিবেশগত ব্যবস্থাপনার গাইড লাইন প্রনয়ন
  • নির্মান সামগ্রীর পরিবেশ অনুকুলতা মূল্যায়ন
  • বিভিন্ন দেশের গাইড লাইন যেমন Green Building Council of Australia, LEEDS of USA, BREAMS of UK ইত্যাদির আলোকে বাংলাদেশের উপযোগী গ্রীন বিল্ডিং ডিজাইনের জন্য গাইড লাইন প্রনয়ন
  • বিশ্বের অন্যান্য অনেক দেশের মতো বাংলাদেশের ভবনগুলোর জন্য গ্রীন ষ্টার রেটিং প্রবর্তনের পক্ষে সমর্থন আদায়
  • জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাব মোকাবেলায় ভবনগুলোতে গ্রীন ফিচার উন্নয়ন ও শনাক্তকরণ
সকল নোটিশ